খেলাধুলা

আগের ম্যাচের খলনায়কই এখন বিশ্বের সেরা নায়ক

স্যামসন সুপ্রিয় জামান :

৭ই আগস্ট শনিবার শেরে-বাংলা মিরপুর স্টেডিয়ামে অজিদের বিপক্ষে চতুর্থ টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি খেলেন বাংলাদেশ। ব্যাটিং বিপর্যয় থেকে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ। নির্দিষ্ট ওভার শেষে সংগ্রহ হয় মাত্র ১০৫ রান।

তবে বাংলাদেশ বরাবরই বোলিং য়ে অপ্রতিরোধ্য, অনন্য। ছোট সংগ্রহ করেও অস্ট্রেলিয়া কে ভালো একটি চাপের মুখে রেখেছিলো টাইগাররা। বিপদটি হয় সাকিবের বলে ড্যানিয়েল ক্রিস্টিয়ান এর ৬, ৬, ৬, ০, ৬, ৬ এর ঝড়ো ইনিংস লং অন, ওয়াইড লং অন, মিডউইকেট, মিডউইকেট, লং অন- এ অঞ্চল দিয়ে পাঁচটি ছক্কা মেরেছেন ক্রিস্টিয়ান। এদিন সাকিব ওই পাঁচটি বাদেও আরও একটি ছয় মেরেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। এতে ৩ উইকেটে জয় পায় অজিরা।

তবে বাংলাদেশের সেরা অর্জন ও আবিষ্কার তো সাকিব-আল-হাসান ই। সিরিজের ৪র্থ ম্যাচের খলনায়ক সাকিব ৫ম ও শেষ ম্যাচে বনে যায় সেরা নায়ক। নাম লেখায় ইতিহাসের পাতায়। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে ১ হাজার রান ও ১০০ উইকেটের ডাবল পূর্ণ করলেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার।

সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত টেস্টে এই ‘ডাবল’ অর্জন করেছেন ৭১ জন, ওয়ানডেতে ৬৫। দুই সংস্করণেই আলাদাভাবে করতে পেরেছেন ২৪ জন অলরাউন্ডার। বলাই বাহুল্য, তিন সংস্করণে সাকিবই প্রথম। সাকিবের পর একশ টি-টোয়েন্টি উইকেটের ছোঁয়ার দৌড়ে আছেন টিম সাউদি (৯৯ উইকেট) ও রশিদ খান (৯৫)।

তবে ব্যাট হাতে হাজার রান তাদের এখনও যোজন যোজন দূরে। সাউদির রান মোটে ২৪৯, রশিদ খানের ১৭৯। এই ডাবল-এ তাই আগামী বেশ কিছুদিন সাকিবের একা থাকা নিশ্চিত।