রাজনীতি

ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের কমিটিতে পদ পেলেন যারা

স্টার টোয়েন্টিফোর টিভি নিউজ ডেক্স :

সম্মেলনের প্রায় এক বছর পর পূর্ণাঙ্গ কমিটি পেল ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। যেখানে নতুন আর পুরাতনের সমন্বয় রয়েছে। এরমধ্যে বেশিরভাগই পুরনো কমিটি থেকে পেয়েছেন গুরুত্বপূর্ণ পদ।

এছাড়া যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগসহ দলের সহযোগী-ভাতৃপ্রতীম সংগঠনের সাবেক বেশ কয়েকজন নেতাকেও মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে দলের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এ পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন দেন। পরে দলের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা প্রকাশ করা হয়।

উপদেষ্টা পরিষদে নতুন করে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন আবদুল হক সবুজ, কামাল চৌধুরী, অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ফোরকান মিঞা, শেখ রইসুল আলম ময়না, অ্যাডভোকেট জাহানারা বেগম রোজী, ফজলে রফিক, মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, মাহবুবুর রহমান আলীজান, মোহাম্মদ নাজমুল হুদা, ডা. মোশাররফ হোসেন, মীর সমীর, অ্যাডভোকেট আতাউর রহমান মোল্লা, হাজী আফতাব উদ্দিন, হাজী ফয়েজ, মুক্তিযোদ্ধা ফুয়াদ আলম, সফিকুর রহমান জাহাঙ্গীর, ফজলুর রহমান পর্বত, সিরাজুল ইসলাম রাডো, তোফাজ্জল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা আহসান উল্লাহ মনি, প্রকৌশলী লুৎফর রহমান, হাজী ইসলাম উদ্দিন, অ্যাডভোকেট এস এম আমিনুল ইসলাম, আবুল কাশেম, শেখ ইসমত জামিল আকন্দ লাভলু এবং সেকান্দার আলী। এদের বেশিরভাই গত কার্যনির্বাহী কমিটিতে ছিলেন, যাদের পদোন্নতি দিয়ে উপদেষ্টা পরিষদে আনা হয়েছে। এছাড়া প্রবীণ কিছু নেতাকে উপদেষ্টা পরিষদে ঠাঁই দিয়ে সম্মান দেখানো হয়েছে।

সহ-সভাপতির ১১টি পদে এসেছেন নুরুল আমিন রুহুল এমপি, ডা. দিলীপ কুমার রায়, শহীদ সেরনিয়াবাত, হাজী মো. সাহিদ, খন্দকার এনায়েত উল্ল্যাহ, মিজবাউর রহমান ভূঁইয়া রতন, আবদুস সাত্তার মাসুদ, সাজেদা বেগম, আওলাদ হোসেন, শরফুদ্দিন আহমেদ সেন্টু ও হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন। এদের মধ্যে শহীদ সেরনিয়াবাত ও আবদুস সাত্তার মাসুদ কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য। বাকিরা আগের মহানগর দক্ষিণ ও থানা কমিটিগুলোর বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

এছাড়া নতুন কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের তিনটি পদে রয়েছেন কাজী মোরশেদ হোসেন কামাল, মিরাজ হোসেন ও মহিউদ্দিন আহমেদ মহি। এদের মধ্যে মহিউদ্দিন আহমেদ মহি কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, যাকে প্রথমবারের মত মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের কমিটিতে নেওয়া হয়েছে। বাকি দুইজন আগের কমিটির বিভিন্ন পদে ছিলেন। এবার পদোন্নতি দিয়ে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন গোলাম আশরাফ তালুকদার, আখতার হোসেন ও গোলাম সরোয়ার কবির। এদের মধ্যে গোলাম সারোয়ার কবির কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। গোলাম আশরাফ তালুকদার ও আখতার হোসেন গত কমিটিতে যথাক্রমে সাংগঠনিক সম্পাদক এবং প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ছিলেন।

পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে নতুন মুখ হিসেবে কোষাধ্যক্ষ পদে ব্যবসায়ী হুমায়ুন কবির; আইন সম্পাদক পদে আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ নেতা ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জগলুল কবির; দপ্তর সম্পাদক পদে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ; ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক পদে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইসমাইল হোসেন; প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে সাবেক ছাত্রনেতা চৌধুরী সাইফুন্নবী সাগর; বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক পদে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এফ এম শরিফুল ইসলাম; মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক পদে মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হোসেন হেলাল; যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইদুল ইসলাম খান পল; সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আবদুল মতিন ভূঁইয়া; সহ-দপ্তর সম্পাদক পদে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আরিফুর রহমান রাসেল এবং সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

নতুন কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীতে আরও রয়েছেন- কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক আবদুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আনিস আহম্মেদ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক শেখ মো. আজহার, বন ও পরিবেশ সম্পাদক নাঈম নোমান, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তাহমিনা সুলতানা, শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক এস কে বাদল, শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক মো. নাসির, শ্রম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. নজরুল ইসলাম। এদের সবাই আগের কমিটির বিভিন্ন পদে ছিলেন।

৩৬ জন কার্যনির্বাহী সদস্যের মধ্যে প্রথম দুটি পদে রয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এবং মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সদ্যসাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ।

এছাড়া সদস্য হয়েছেন আবুল বাশার, সালাউদ্দিন বাদল, এস এম শহিদুল ইসলাম মিলন, আশরাফ ইসলাম মারুফ, গোলাম রাব্বানী ডাবলু, সাইফুল ইসলাম (মাসুদ সেরনিয়াবাত), মজিবুর রহমান, জসিম উদ্দিন খান আজম, গিয়াস উদ্দিন সরকার পলাশ, মামুন রশিদ শুভ্র, ওমর বিন আবদাল আজিজ তামিম, মারুফ আহম্মেদ মনসুর, আসাদুজ্জামান আসাদ, শফিকুল ইসলাম খান দিলু, ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ রতন, আনিসুর রহমান আনিস, ইলিয়াছ আহমেদ বাবুল, জসিম উদ্দিন, শাহজাহান ভূঁইয়া মাখন, সৈয়দ রোকসানা ইসলাম চামেলী, মোহাইমান বয়ান, সাহাবুদ্দিন সাহা, রাশেদুল মাহমুদ রাসেল, রাকিব হাসান সোহেল, অপু বড়ুয়া, অ্যাডভোকেট সালাম আক্তার কেকা, ড. খন্দকার তানজির মান্নান, এম এম আলিমুজ্জামান আলম, আইউব খান, আমিনুল ইসলাম শামীম, সাজেদুল হোসেন চৌধুরী দীপু, লাভলী চৌধুরী, ফাতেমা আক্তার ডলি এবং সিরাজুম মনির টিপু।

গত বছরের ৩০ নভেম্বর এক সঙ্গে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন শেষে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগে শেখ বজলুর রহমানকে সভাপতি ও এস এম মান্নান কচিকে সাধারণ সম্পাদক এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগে আবু আহমেদ মন্নাফীকে সভাপতি ও হুমায়ুন কবীরকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়।

সম্মেলন অনুষ্ঠানের পরপরই ক্ষমতাসীন দলের ঢাকা মহানগরের এই দুই অংশের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের কার্যক্রম শুরু হলেও করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবসহ নানা কারণে তা শেষ করতে প্রায় এক বছর সময় লেগেছে।

বুধবার মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণার একদিন পর গতকাল দক্ষিণ আওয়ামী লীগেরও পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হলো।