সারাদেশ

ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রুটে রেল লাইনের দাবীতে মতবিনিময় সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক, মানিকগঞ্জ :

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে ‘ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইনের দাবীতে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার ( ০৯ জানুয়ারী) বেলা ১১টায় পাটুরিয়া ঘাটে ‘পদ্মা রিভার ভিউ’ এর কনফারেন্স রুমে ‘ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন আন্দোলন বাস্তবায়ন কমিটি ও মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাব এবং বারসিক যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করেন।

এতে সভাপতিত্ব করেন, ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন আন্দোলন বাস্তবায়ন কমিটি’র আহবায়ক ও মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম ছারোয়ার ছানু।

ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পে যুক্ত হওয়ায় সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন আন্দোলন বাস্তবায়ন কমিটি।

এসময় ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন আন্দোলন বাস্তবায়ন কমিটি’র আহবায়ক ও মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম ছারোয়ার ছানু বলেন, যে দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না, সে দেশ কোন দিন উন্নতি লাভ করতে পারেনা। তাই জাতীয় স্বার্থেই আমাদের এ আন্দলোন। আমরা এ পর্যন্ত রেল লাইনের দাবীতে রেল সচিব মহোদয়, স্থানীয় এমপি, জেলা প্রশাসকের দপ্তরে স্বারক লিপি দিয়েছি। এখন এই স্বারক লিপিগুলো রেল মন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রদান করতে হবে।

আওয়ামীলীগ নেতা এডভোকেট দীপক কুমার ঘোষ বলেন, আমাদের এ আন্দোলন আরো বেগবান করতে হবে। এর মধ্যে মিডিয়া ক্যাম্পেইন, সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যোগাযোগ বাড়নো এবং প্রয়োজনে এলাকাবাসীকে নিয়ে মানববন্ধনসহ নানাবিধ কর্মসুচীর মাধ্যমে আমাদের কাজটি এগিয়ে নিতে হবে। এ আন্দোলন জোরদার করতে হলে রাজবাড়ি, ফরিদপুর, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ ও পাবনাসহ আন্তঃজেলার লোকজনকে সাথে নিয়ে কাজ করতে হবে। কারণ এটা শুধু মানিকগঞ্জ বাসীর জন্য নয়, এটা জাতীয় দাবী। এমতাবস্থায় ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইনের দাবীতে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অতিন্দ্র চক্রবর্তী বিপ্লব বলেন, কোন আন্দোলনই ব্যর্থ হয় না। আমাদের এ আন্দলোন ২০১৪ সাল থেকে শুরু হয়েছে। রেল লাইন আজ সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পে যুক্ত হয়েছে আমাদের এ আন্দোলনের কারণেই। তাই সরকারকে আমরা অভিনন্দন জানাই।

ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন আন্দোলন বাস্তবায়ন কমিটি’র সদস্য সচিব বিমল চন্দ্র রায় বলেন, আমাদের এ আন্দোলনে স্থানীয় সংসদ সদস্যদেরকে সম্পৃক্ত করতে হবে। অচিরেই আমাদেরকে রেল মন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করতে হবে।

কমিউনিস্ট পার্টি রাজবাড়ী জেলা শাখার সভাপতি মো.আব্দুস ছামাদ মিয়া বলেন, ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন আন্দোলন দ্রুত বাস্তবায়ন করতে হলে ঘরে-বাইরে আন্দোলন করতে হবে। সবাই মিলে করলে কাজটি সহজ হবে।

জাসদ নেতা ইকবাল খান বলেন, আমাদের মত করে রেল লাইনের ডিজাইন করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে সাবমিট করা দরাকার। সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পের টপটেনে থাকতে হলে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যোগাযোগ বাড়াতে হবে।

মানিকগঞ্জ জেলা শিক্ষক সমিতি’র সাধারণ সম্পাদক মো. মজিবুর রহমান (মাস্টার) বলেন, রাজবাড়ি, ফরিদপুর, কুষ্টিয়া জেলার লোকজনকে সাথে নিয়ে আন্দোলন করতে হবে।

কৌড়ি এম,এ রউফ অনার্স কলেজে’র অধ্যক্ষ ডি,এম নাসিম উদ্দিন বলেন, আরিচা ওপারে ঢালার চর পর্যন্ত রেল লাইন আছে মানিকগঞ্জে নেই। তাই রেল লাইনের দাবীতে আন্দোলন আরো বেগবান করতে হবে।

শিক্ষক আরশেদ আলী বলেন, ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রেল লাইন হলে আমাদের মানিকগঞ্জের কৃষকরা অতিদ্রুত সহজেই কৃষি পণ্য নিয়ে ঢাকা যেতে পারবে।

বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি মানিকগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান বিশ্বাস বলেন, যেহেতু রেল লাইন সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পে যুক্ত হয়েছে, সেহেতু মানিকগঞ্জ যাতে ১ম ধাপে কাজ শুরু হয় সে জন্য আমাদেরকে আন্দোলনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যোগাযোগ বাড়াতে হবে। যাতে সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পের টপটেনের মধ্যে আমরা থাকতে পারি।

সাংবাদিক সমিতি’র সাবেক সভাপতি মতিউর রহমান বলেন, স্থানীয় পর্যায়ে আন্দলোনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট দপ্তরেও দ্রুত যোগাযোগ বাড়াতে হবে। তাহলে আমরা সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পের টপ টেন থেকে টপ ফাইবেও আসতে পারি।

সাংবাদিক সমতি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বি,এম খোরশেদ বলেন, রেল লাইনের দাবীতে আমাদের সকলকে একযোগে কর্মসুচী করা উচিত। তাহলেই সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পে মানিকগঞ্জকে ১ম ধাপেই সংযুক্ত করা সম্ভব হবে।

শিবালয় উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বলেন, এ আন্দলোনের সাথে এমপি, মন্ত্রীদেরকে সম্পৃক্ততা করতে হবে।

সাংবাদিক সামিতি’র সভাপতি রফিকুল ইসলাম বলেন, ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়ার সাথে আরিচাকে সংযুক্ত করতে হবে। বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কগুলোর মধ্যে অন্যতম এবং ব্যাস্ততম মহাসড়ক ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক। এ রুটে রেললাইন স্থাপন সময়ের দাবী।

সাংবাদিক আকমল হোসেন বলেন, একাধিক মানবন্ধন, সভা সমাবেশ জোরদার করলে করলে রেল লাইন আন্দলোন বস্তবায়ন সম্ভব।

মানিকগঞ্জ প্রগতি লেখক সংঘের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বলেন, আমাদের দাবী বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। আর মিডিয়ায় বেশী বেশী করে প্রচার করতে হবে।